কিভাবে এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করা যায় 2022

কিভাবে এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করা যায় বা নিজেই app তৈরি করবেন সেটা নিয়ে ভাবছেন, তাহলে চিন্তা করার প্রয়োজন নেই।

কারণ, আজকের আর্টিকেলে আমি এমন ৩ টি ওয়েবসাইটের সম্পর্কে বলবো যার মাধ্যমে সম্পূর্ণ ফ্রিতে এন্ড্রয়েড মোবাইল এপস বানিয়ে নিতে পারবেন।

সাধারণত app তৈরি করার জন্য কোডিং জানতে হয়। কিন্তু, আপনার যদি কোনো ধরনের কোডিং না জানা থাকে তাহলেও এপস তৈরি করতে পারবেন।

বর্তমানে Android apps গুলো অনেক জনপ্রিয় এবং ফ্রি হওয়ার জন্য এর চাহিদা দিন দিন প্রচুর বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাছাড়া, বর্তমানে প্রায় ৯০% মানুষ নিজেদের প্রয়োজনে এপস ব্যবহার করে।

আপনি যদি এন্ড্রয়েড ফোন ইউজার হন এবং আপনার যদি বিকাশ একাউন্ট থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করেন।

মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায়

কারণ, এর মাধ্যমে অনেক সহজে টাকা লেনদেন করা সহ আরো বিভিন্ন ধরনের কাজ গুলো করা সম্ভব। একই ভাবে যেকোনো কাজ অ্যাপের মাধ্যমে করা সহজ।

তাহলে চলুন নিচে থেকে জেনে কিভাবে কোনো ধরনের কোডিং বা নলেজ ছাড়া নিজে app তৈরি করা যায়।

কিভাবে এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করা যায় 2022? (Create free Android apps)

আমি আগেই বলেছি এপস তৈরি করার জন্য কোডিং জানতে হয়। কিন্তু, আমরা কোনো ধরনের কোডিং ছাড়াই কিভাবে এপস তৈরি করা যায় সেই সম্পর্কে জানবো।

কোডিং ছাড়া app তৈরি করার জন্য আমরা ৩ টি ওয়েবসাইটের সাহায্য নিতে পারি। এই ওয়েবসাইট গুলোর সাহায্যে যেকোনো ধরনের অ্যাপস বানানো যাবে।

আর আপনি যদি মনে করেন কোডিং করে এপস তৈরি করবেন তাহলে অনলাইনে W3school এই ওয়েবসাইটে গিয়ে জাভা (Java) শিখে এপস তৈরি করতে পারবেন।

নিজেই app তৈরি করুন ৩ টি ফ্রি ওয়েবসাইট ব্যবহার করে 

অ্যাপস তৈরি করার জন্য আমি যে ৩ টি ওয়েবসাইটের নাম বলবো সে গুলোর আপনি সম্পূর্ণ ফ্রিতে যেকোনো ধরনের এন্ড্রয়েড মোবাইল অ্যাপস তৈরি করতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইট ব্যবহার করে এপস তৈরি করার জন্য আপনার প্রয়োজন হবে একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এবং সাথে ইন্টারনেট কানেকশন।

১. Mobincube – Create apps and earn

আপনারা এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে খুব সহজে app বানাতে পারবেন। এর জন্য প্রথমে ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে sing up করতে হবে।

সহজে sing up করার জন্য ফেসবুক, টুইটার এবং গুগল একাউন্ট ব্যবহার করে sing up করে নিতে পারবেন।

এরপর আপনি যে কোনো ক্যাটাগরির অ্যাপ তৈরি করে সেগুলো পাবলিশ (publish) করতে পারবেন। এখানে এন্ড্রয়েড, আইফোন, উইন্ডোজ সহ আরো বিভিন্ন ধরনের অপারেটিং সিস্টেমের app তৈরি করতে পারবেন।

এখান থেকে এপস তৈরি করে আপনি গুগল প্লে স্টোরে আপলোড করতে পারবেন। তাছাড়া mobincube ওয়েবসাইটে monetization অপশন রয়েছে। 

তাই এখানে এপস পাবলিশ করে বিজ্ঞাপন দ্বারা আপনি টাকা আয় করতে পারবেন।

২. AppYest – App Creator

এই ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে যে ব্লগ বা ওয়েবসাইট কে একটি এন্ড্রয়েড অ্যাপে রুপান্তরিত করতে পারবেন। আর এই কাজ করতে আপনার সময় লাগবে মাত্র কয়েক মিনিট।

কোনো ধরনের কোডিং বা নলেজ ছাড়াই ৩ থেকে ৫ মিনিটের মধ্যে ব্লগ বা ওয়েবসাইট কে Android app এ কনভার্ট করতে পারবেন।

এখান থেকে এপস তৈরি করে গুগল প্লে স্টোর বা অন্যান্য অ্যাপ স্টোর (app store) এ পাবলিশ করতে পারবেন।

৩. AppsGeyser : Free App Maker

এই ওয়েবসাইটের সাহায্যে যেকোনো ধরনের এন্ড্রয়েড অ্যাপ (Android app) বানিয়ে নিতে পারবেন। যেমন – মেবাইলের লাইভ টিভি, ফটো এডিটিং, ওয়েব ব্রাউজার, ভিডিও এডিটিং এন্ড ডাউনলোড সহ আরো বিভিন্ন ধরনের অ্যাপস।

তাছাড়া যেকোনো ব্লগ বা ওয়েবসাইট কে সহজে Android app এর কনভার্ট করে নিতে পারবেন। এই সব অ্যাপস গুলো তৈরি করার জন্য আপনার কোনো ধরনের কোডিং নলেজ প্রয়োজন নেই।

AppsGeyser ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ তৈরি করে সেটা আপনি google play store এ আপলোড করে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

বন্ধুরা উপরে বলা তিনটি ওয়েবসাইট থেকে যেকোনো একটি ওয়েবসাইট ব্যবহার করে মনে মতো যেকোনো ধরনের অ্যাপস তৈরি করতে পারবেন।

এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করে আপনার লাভ কি?

আমরা সবাই google play store থেকে মোবাইলের জন্য অ্যাপস ডাউনলোড করি। কি ঠিক বলছি তো? সেখানে লাখ লাখ অ্যাপস রয়েছে। 

এই অ্যাপস গুলোর মধ্যে ৮৫ % অ্যাপস সম্পূর্ণ ফ্রিতে ডাউনলোড করা যায়। এখন প্রশ্ন হলো যারা এই অ্যাপস গুলো তৈরি করে এখানে পাবলিশ করেছেন তাদের লাভ কি?

হা, অবশ্যই লাভ রয়েছে। আর সেটা হলো এই অ্যাপের মাধ্যমে তারা টাকা আয় করছে। যদি বলেন কিভাবে সেটাও বলছি।

আপনি একটি আকর্ষণীয় অ্যাপ বানিয়ে সেটা গুগল প্লে স্টোরে পাবলিশ করে টাকা আয় করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে google admob এ গিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে হবে।

এবার এই admob একাউন্টের মাধ্যমে নিজের অ্যাপের জন্য কিছু বিজ্ঞাপন তৈরি করতে হবে এবং অ্যাপে বসাতে হবে। ১-২ মিনিটের মধ্যে আপনি বিজ্ঞাপন গুলো তৈরি করতে পারবেন।

এবার গুগল প্লে স্টোর থেকে মানুষ যখন আপনার অ্যাপটি ইনস্টল করে ব্যবহার করবে তখন অ্যাপে বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন দেখাবে। এই বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য আপনি টাকা আয় করতে পারবেন। 

আপনি নিজে যখন play store থেকে কোনো এপস ইনস্টল করে ব্যবহার করেন তখন সেটা বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন দেখতে পান।

এই বিজ্ঞাপন দেখান ফলে যিনি অ্যাপটি তৈরি করেছেন তিনি কিন্তু টাকা আয় করছে। আশাকরি বুঝতে পারছেন অ্যাপ তৈরি করার লাভ সম্পর্কে।

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম কিভাবে এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করা যায় কোনো ধরনের কোডিং বা নলেজ ছাড়াই।

উপরে বলা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিজেই app তৈরি করুন এবং সেই এপস তৈরি করে ইনকাম করুন। এই সম্পর্কে যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্টে জানাবেন এবং ভালো লাগলে শেয়ার করবেন।

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap